২০১২, ২০১৩ সালের পর ২০১৪ সালেও হুটহাট করেই একটা আড্ডার আয়োজন করে ফেললাম আমরা কলেজের কয়েকজন বন্ধু। গত ২দিন হঠাৎ করেই ইচ্ছা হল বাংলা কলেজের সেই প্রাণের ক্যাম্পাসে আড্ডা দেয়ার। সহিদ আর রিঙ্কু রিসেন্টলি বিদেশ থেকে এসেছে আর মাইদুল সহ এরা ৩জন বিয়ের পর আর আমাদের সাথে দেখা হয়নি। আড্ডার কথা মাথায় চিন্তা খেলে যাওয়া মাত্রই কয়েকজনের সাথে কথা বললাম আর চটজলদি সবাই রাজি হয়ে যাওয়ায় আজকে সকাল ১১টার মধ্যে আমরা সবাই বাংলা কলেজের গেটে উপস্থিত হলাম।

 

চূড়ান্ত বাঁদরামির একটা মুহূর্ত!

 

 
 
জরুরি কাজ, চাকুরি আর অনেকের সাথে যোগাযোগ না করতে পারায় আমরা মাত্র ১৬ জন আসছিলাম আজকে। কলা ভবনের পাশ দিয়ে কলেজের পিছনে সেই মেঠোপথ ধরে যাওয়ার সময় সবাই ২০০৭-২০০৮ সালে ঘটে যাওয়া নিজেদের সেই মজার স্মৃতি গুলো আপন মনেই আউরাচ্ছিলাম। যেখানে আমরা বেশি সময় আড্ডা দিতাম সেখানেই প্রথম গেলাম, এরপর সেই পেয়ারা গাছ খুঁজলাম যেটার পেয়ারা প্রায়ই পেড়ে পেড়ে খেতাম। পেয়ারা গাছটি খুব সম্ভবত কেটে ফেলা হয়েছে।
 
 
 
 
ইন্টারমিডিয়েট স্টুডেন্টদের কলেজ ইউনিফরম পড়া দেখে আমরা সেই সব দিনের কথা আলোচনা করছিলাম যখন আমাদের কে নতুন নিয়মের আওতায় ইউনিফরম পড়তে বলা হত কিন্তু আমরা বেশিরভাগ সময় শুধু নেভি ব্লু কালারের শার্টটা ব্যাগে নিয়ে আসতাম, ক্লাশে পড়ে ঢুকতাম আর ক্লাশ শেষে আবার সেটা ব্যাগে ঢুকিয়ে রাখতাম :D
 
 
 
আমরা সবাই একসাথে!

 

 
 
৭টা বছর পার হয়ে গেলেও আমাদের মধ্যে সেই আন্তরিকতা একটুও কমেনি <3
সেই আগের ব্যাপার নিয়ে আমরা মজা করি, কিছু ছোটখাটো ভুল নিয়ে আজও একজন আরেকজনকে ক্ষেপাই ^_^ সেই ক্ষেপানোর মধ্যেও আছে আনন্দ, আছে এক ধরণের অকৃতীম ভালবাসা।
 
আমার স্পষ্ট মনে আছে, ইন্টারের শেষ দিকে বন্ধু এনাম প্রায়ই বলতো এক সময় আমরা অনেক ব্যস্ত হয়ে যাবো। পড়াশুনার প্রেশার, চাকরি কিংবা ক্যারিয়ার নিয়ে সময় কাটবে তখন আমরা এই সময় গুলো অনেক মিস করবো। আমি সবসময় উত্তরে বলতাম যে অনেকদিন পর করে হলেও আমরা সবাই একসাথে ক্যাম্পাসে আসবো। বাসভাড়া দেয়ার সময় তুই দে, না তুই দেএই নিয়ে মজা করবো, মাঠে বসে একসাথে গান গাবো, আগের মত সেই জোকস বলা, চাপা মারা এসব দিয়ে মজার একটা সময় কাটাবো।
 
 
 
গত ৩ বছরে আমরা ৪বার এইরকম মিটাপ করলাম আর একেবারেই হুটহাট করেই বলা চলে। পুলাপান অনেকেই অনেক জরুরি কাজ ফেলে আজকে শুধু মাত্র আমার একটা কল পেয়ে চলে এসেছে বন্ধুদের সাথে সময় কাটাতে।
আল্লাহ বাঁচালে নেক্সট টাইম আরও অনেক সুন্দর করে এরেঞ্জমেন্ট করে, আরও বেশি বন্ধুদের নিয়ে একটা পিকনিকে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। দেখা যাক ভাগ্যে কি থাকে।
আজকে অনেকেই আসতে পারে নাই, অনেককে হয়তো বলা হয়নি সময়ের অভাবে। অনেক্কেই মিস করেছি। নেক্সট টাইম ইনশাআল্লাহ মিস করবেনা।
 বিশেষ করে মিস করেছি আমাদের মরহুম দোস্ত ইব্রাহিমকে 🙁

আমাদের প্রথম আড্ডায় সে ছিল।

Leave a comment